রিলেশনশিপ

জান, একটা কিস করতে দেবে – প্রেমিকাকে প্রথম কিস

জান, একটা কিস করতে দেবে – প্রেমিকাকে প্রথম কিস: আমি ভয়ে ভয়ে গালটা এগিয়ে দিলাম। পারুল আমার গালে ছোট্ট একটা চুমু দিল। আমি অবাক হয়ে বললাম…


মূলগল্প

‘জান, একটা কিস করতে দেবে?’
কথাটা শুনে পারুল এমনভাবে তাকাল যে সে ভুত দেখছে। তার পাশে বোধহয় একটা হাত পাওয়ালা ভুত বসে আছে। কয়েক মূহুর্ত অবাক হয়ে তাকিয়ে রইল। তারপর বলল,
‘কি বললে, আবার বলোতো?’
আমি ভয় পেয়ে বললাম,
‘কেন, শোননি?’

‘না, আবার বলো?’
আমি ঢোক গিলে বললাম,
‘একটা কিস করবে আমাকে?’
পারুল বলল,’হঠাৎ কিস করার ইচ্ছা হলো কেন?’
‘কেন আবার, তোমাকে ভালোবাসি না? একটা কিস করতে ক্ষতি কি?’
‘অনেক ক্ষতি! আর তাছাড়া ভালোবাসলেই কি শারীরিক সম্পর্কে জড়াতে হবে?’
আমি বললাম,

‘আমি তো তোমাকে শারীরিক সম্পর্কে যেতে বলিনি। একটা কিস করতে বলেছি।’
পারুল বোধহয় আমার কথায় আহত হলো। কিছুক্ষন থেমে বলল,
‘আচ্ছা, একটা প্রশ্নের উত্তর দাও তো’
‘কি প্রশ্ন, বলো’

পারুল বলল,’কিস কি দিয়ে করব?’
‘কেন, মুখ দিয়ে?’
‘মুখ কি শরীরের অংশ নয়?’
‘হুম, শরীরের অংশ।’
‘তাহলে কিস করা কেন শারীরিক সম্পর্ক হবে না।’

আমি কিছু বলতে পারলাম না। কারণ, পারুলের কথা ঠিক। কিস করাও এক অর্থে শারীরিক সম্পর্ক!
আমি একটু চুপসে গিয়ে বললাম,
‘দু বছরের সম্পর্ক, একটা কিস করতেও সমস্যা?’
‘হ্যা, সমস্যা’

‘কি সমস্যা?’
এবার পারুল অগ্নিদৃষ্টি নিক্ষেপ করে বলল,
‘আচ্ছা, তুমি কি আমার শরীরটাকে ভালোবাস।’
আমি বললাম,’হু’
‘শোন, ভালোবাসা শরীর দেখে হয় না, হয় মন দেখে।’

আমি বললাম,’তাহলে কি শুধু মনকেই ভালোবাসব?’
পারুল বলল,’হ্যা, শুধু মনকে?’
‘কিন্তু মনের তো কোন অস্তিত্বই নেই।’
‘তা নেই।’
‘শোন পারুল, যদি মানুষ শুধু মনকে ভালোবাসত, তাহলে ছেলেরা ভালোবাসার ক্ষেত্রে সুন্দর মেয়ে খুজত না। যেমন হোক তেমন হোক, একটা মেয়ের মনের প্রেমে পরে যেত।’
পারুল অবাক হয়ে বলল,

‘তার মানে, তুমি আমার মনের মনের সাথে সাথে আমার শরীরটাও দেখে প্রেম করছ?’
‘হুম, করছি তো’
‘তাহলে ১০০ গজ দূরে থাকো, আজ থেকেই সম্পর্ক শেষ।’
‘কেন?’
‘কারণ, আমি চাই যে আমার মনকে ভালোবাসবে তাকে, তোমার মত যারা শরীরকে ভালোবাসবে তাদের সাথে কোন কথাও বলব না।’

পারুল উঠে চলে গেল। কিস তো দিলোই না, সম্পর্কটাই শেষ করে দেওয়ার হুমকি দিলো!

কয়েকদিন পর পারুলের দেখা পেলাম। আমাকে দেখেই চলে যাচ্ছিল। ওর সামনে মুখ কাচুমাচু করে দাড়ালাম। পারুল নির্লিপ্ত কন্ঠে বলল,
‘কিছু বলবে?’
আমি মাথা ঝাকিয়ে বললাম,’হু’
‘কি বলবে?’
‘আমি তোমার মনকে ভালোবাসব পারুল।’
‘সত্যিই, না রাগ ভাঙ্গানোর জন্য বলছ?’
‘সত্যিই’

‘তাহলে ঠিক আছে। এখন আমার সাথে চলো’
‘কোথায় যাবে?’
‘কিছুক্ষন হাটব’
আমি পারুলের পাশে পাশে হাটছি। ওর দিকে তাকালাম। এ কয়দিনে পারুল অনেকটা শুকিয়ে গেছে।
আমি বললাম,
‘পারুল..?’
‘হ্যা, বলো’

‘তুমি খু্ব শুকিয়ে গেছ।’
‘তাই নাকি?’
‘হুম’
‘তাহলে তো ভালোই।’
আমি বললাম,
‘আমার চিন্তা করে শুকিয়ে গেছ নাকি?’
পারুল থমকে দাড়াল। তারপর বলল,
‘তোমার গালটা এদিকে বাড়িয়ে দাও তো।’

বুঝতে পারলাম, পারুল চর মারবে!বললাম,
‘কেন?’
‘আগে বাড়িয়ে দাও, তারপর বলি’
আমি ভয়ে ভয়ে গালটা এগিয়ে দিলাম। পারুল আমার গালে ছোট্ট একটা চুমু দিল। আমি অবাক হয়ে বললাম,
‘এটা কি করলে পারুল?’
‘চুমু দিলাম’

‘কেন, সেদিন চেয়েও দিলে না, আর আজ না চাইতেই…’
পারুল বলল,
‘খুশি হওয়ার কিছু নাই, এটা ওসব ভেবে চুমু দেই নি। তুমি শুধরে গেছ, সেজন্য দিয়েছি। ছোট্ট বাচ্চাদের যেমন আদর করে মানুষ চুমু দেয়, সেরকম।’

পারুল কিছুক্ষন থামল। তারপর বলল,
‘শোন, আমি তোমারই থাকব। সবই তো পাবে। অপেক্ষা করো। অপেক্ষার ফল মিষ্টি হয়!

বিয়ে তো করবই। তখন….’
পারুল আর কিছু বলল না।
আমিও কিছু বললাম না। নিঃশব্দে পাশাপাশি হাটছি দুজন!

আমি তিনদিন থেকে হাতমুখ ধুই নি, গোসল করিনি। শুধু ব্রাশ করে, কুলি করে খাওয়দাওয়া সারছি।

গোসল না করার কারণ,’পারুল গালে কিস করেছে। হোক না আদর করে দেওয়া কিস, ছোট্ট বাচ্চাদের মত করে দেওয়া কিস। তাও, পারুলের প্রথম ঠোঁটের ছোয়া তো গালে লেগে আছে!
গোসল করলে, মুখ ধুলে তো সে ছোয়া ধুয়ে যাবে! সেটা তো গতে দেওয়া যায় না!

এখনো অনেকদিন অপেক্ষা করতে হবে!তাই, গালে লেগে থাকা পারুলের ঠোঁটের ছোয়া এখনো রক্ষা করে চলেছি আমি!

লেখক: হিমান দ্য সুপার রাইটার

সমাপ্ত

(পাঠক আপনাদের ভালোলাগার উদ্দেশ্যেই প্রতিনিয়ত আমাদের লেখা। আপনাদের একটি শেয়ার আমাদের লেখার স্পৃহা বহুগুণ বাড়িয়ে দেয়। আমাদের এই পর্বের “জান, একটা কিস করতে দেবে – প্রেমিকাকে প্রথম কিস” গল্পটি আপনাদের কেমন লাগলো তা কমেন্ট করে অবশ্যই জানাবেন। পরবর্তী গল্প পড়ার আমন্ত্রণ জানালাম। ধন্যবাদ।)

আরো পড়ূন – ইতি ২০২০ – নতুন জীবনের গল্প

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!