ভালোবাসার কবিতা

ভালোবাসার বিদ্রোহী কবিতা – সবকিছু নষ্টের দখলে

ভালোবাসার বিদ্রোহী কবিতা

ভালোবাসার বিদ্রোহী কবিতা – সবকিছু নষ্টের দখলে: জীবের প্রতি মানুষের প্রতি যার ভালবাসা আছে তার পক্ষে সমাজের অসঙ্গতি ও অনিয়ম মানা সম্ভব না। তার অন্তর কাঁদে এই বৈষম্য ও অন্যায় দেখে। এমনি এক ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ ও প্রতিবাদী কবিতা এটি।

সবকিছু নষ্টের দখলে

নূরে জান্নাত


সচরাচর আমার এতো সকালে ঘুম ভাঙে না।
আজকাল তো চোখ বুজলেই বেঁচে যাই।
দূর থেকে ধেয়ে আসছে শব্দ, একটানা ক্ষীণ।
ঘুম ঘুম চোখের পাতাকে জোরজবরদস্তিতে খুলে রাখি।
পেট মোচড়ায়,ব‍্যাথা হয়, বুঝি, এ ক্ষুধার জঠরজ্বালা।

পাশে আমার গা ঘেসে শুয়ে থাকা নেড়ি কুকুরটাও নেতানো শরীর নিয়ে উঠে বসে।
সেও বুঝি শুনলো সে আওয়াজ?
ভীতসন্ত্রস্ত চোখে চারপাশে চোখ বুলাই,
শব্দের উৎস খুঁজি আর পেয়েও যাই।

দূরে নয়,কাছাকাছি চলে এসেছে কিছু মানবের জটলা,
একটা বাচ্চা কাঁদে, মায়ের কোলে।
মা যে সন্দেহ নেই, অন্তত আমার নেই।
এই দুর্দিনে মা বিনে কেউ মায়া দেখায় না।
আমিও আচমকা উঠে দাড়াই, ওদের দলে ভিড়তে চাই।
এমন দিনে একত্রে কেউ ছুটলে বল পাই।
সহযাত্রী হবার আপ্রাণ চেষ্টা চালাই।
কেননা দল যেদিকে যাচ্ছে, খাবার পাবার সম্ভবনা সেদিকে প্রবল।

পায়ে বল নেই, দুর্বল সরু পা চলতে চায় না।
পথ চলতে বাঁধা দেয় সূর্য, যেন খাঁমচে ধরে শুষে নিচ্ছে প্রত‍্যেকের জীবনাশক্তি।
নেড়ি কুকুরটা আমার ছেড়া ফ্রকের বেল্ট কামড়ে ধরে, কি চায় সে?
সঙ্গী করি তাকে।

দলে ভিড়তেই সকলের পাংশুটে মুখশ্রী বুকের ভেতর কাঁপন তোলে, ভয়ের কাঁপন।
এরা কি জীবিত না মৃত?
কোঠরে ইঞ্চিখানেক দেবে যাওয়া ভয়াল চোখ, হাড্ডিসার কঙ্কালের ওপর লেপ্টে থাকা ফ‍্যাকাশে চামড়া!
তবে কি আমায়ও এমন দেখাচ্ছে?
তবে আর আমায় নিয়ে কবিতা রচিত হবে না?
আর কবিতা!

কুকুরটা কুই কুই করছে বাচ্চাটার হাতের একটা আধাপাকা কলার টুকরো দেখে।
বিবর্ণ শিশুটির চোখ ভেজা, কান্না থেমেছে যদিওবা।
কুকুরটির দিকে বাড়িয়ে ধরলো সেই কলার টুকরো।
গন্ধ শুঁকে, জিব দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়েচেড়ে ফেলে রাখলো কলাটা, খেলোনা।
পেছন থেকে ছুটে এলো ছ’সাত বছর বয়সী এক বালক।
ক্ষীপ্রতার সঙ্গে তুলে নিয়ে পুরোটা মুখে পুরলো সে, পাছে ভয় যদি অন্য কেউ হাতে তুলে লয়।
মাথার ওপর লোভী শকুনেরা ডানা ঝাপটাচ্ছে।
সামনে থেকে কোন এক বৃদ্ধা শুয়ে ঢলে পড়েছে,
নরম বালি, বৃদ্ধার মাথা আর্ধেক দেবে গেছে।
আয়ু ফুরিয়ে গেছে তার!
কেউ অপেক্ষায় বসে রইলো না।
ছোট্ট দলটা গভীর তেষ্টা গলায় নিয়ে, তীব্র ক্ষুধায় আর্তনাদ করতে করতে এগিয়ে চলে।
সাথে চলি আমিও।
নষ্ট শহর, নষ্ট পৃথিবী, সবকিছু নষ্টের দখলে।


আরো পড়ুন- মনের জানালা কবিতা – শুধু তোমাকেই চাই

Related posts

একলা মেয়ে কবিতা – আমি মেয়ে | Bangla Sad Kobita

valobasargolpo

মিষ্টি মেয়ে কবিতা – সরল মেয়ে | Bangla Kobita

valobasargolpo

Leave a Comment

error: Content is protected !!